মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ০৩:৪৭ পূর্বাহ্ন

সিলেট



নিজস্ব প্রতিবেদন

প্রকাশ: ২০২৪-০৭-০৩ ১০:০৫:২১


সভাপতি-সম্পাদকের বহিস্কারাদেশ অগঠনতান্ত্রিক : সংবাদ-সম্মেলনে বিশ্বনাথ আ’লীগের দুই নেতা

বক্তব্য রাখছেন আব্দুল মতিন ও ফজর আলী

নিজেদের উপর বহিস্কারাদেশ অগঠনতান্ত্রিক অভিযোগ করে তা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন সম্প্রতি দল থেকে সাময়িক বহিস্কার হওয়া সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও দূর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মতিন ও কার্যনির্বাহী সদস্য কাউন্সিলর ফজর আলী।

বুধবার (০৩জুলাই) বিকেলে স্থানীয় একটি রেস্টুরেন্টে সংবাদ-সম্মেলন করে তারা এই দাবি জানান। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ত্রাণ ও দূর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মতিন। এরপর বক্তব্য রাখেন কার্যনির্বাহী সদস্য এবং পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডেও কাউন্সিলর ফজর আলী।

বক্তব্যকালে আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল মতিন ও ফজর আলী বলেন, গত ২৯জুন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহ আসাদুজ্জামান ও সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহমদ তাদেরকে স্ব স্ব পদ থেকে সাময়িকভাবে বহিস্কার করেন, যা সংগঠনের গঠনতন্ত্রের পরিপন্তি। দলের গঠনতন্ত্রের ৪৭ এর (চ) অনুচ্ছেদ মতেও এই বহিস্কারাদেশ সম্পুর্ন বেআইনী।

কারণ কারো বিরুদ্ধে সংগঠনের কোন সদস্যের লিখিত অভিযোগ পেলে উপজেলা নেতৃবৃন্দ সুপারিশসহ জেলা এবং জেলা নেতৃবৃন্দ অভিযুক্ত সদস্যেও বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে চাইলে তারাও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বরাবরে সুপারিশ পাঠাতে পারেন।

কিন্তু কোন অভিযোগ ছাড়াই উপজেলার সভাপতি-সম্পাদক মিটিং না ডেকে, উর্ধ্বতন নেতৃবৃন্দের মতামত না নিয়ে এভাবে বহিস্কারাদেশ দেওয়া বেআইনী। ফলে ৪৭ এর (ছ) অনুচ্ছেদ মতে, প্রতিষ্ঠানের কোন সদস্যেও বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের ক্ষমতা কেবলমাত্র বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের রয়েছে।

যেকারণে বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহ আসাদুজ্জামান ও সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহমদের প্রতি তাদের বহিস্কারাদেশের ঘোষণা অবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে। আর তা না হলে, আগামী রোববার তারা কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে গিয়ে সভাপতি-সম্পাদকের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দাখিল করবেন।

সাময়িক বহিস্কৃত আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল মতিন বলেন, সিলেটে জেলা আওয়ামী লীগের তৎকালনি সভাপতি মরহুম অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান ও বতর্মান প্রবাসী কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী এমপি সাধারণ সম্পাদক থাকাকালীন ২০১৮ সালের ১৩জানুয়ারি মরহুম আলহাজ্বপংকি খানকে সভাপতি ও মরহুম বাবুল আখতারকে সাধারণ সম্পাদক করে বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়। ওই কমিটিতেই তাকে (আব্দুল মতিন) ত্রাণ ও দূর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক করা হয়।

আর বহিস্কৃত অপর আওয়ামী লীগ নেতা কাউন্সিলর ফজর আলী বলেন, ২০১৮ সালের ১৩জানুয়ারির গঠণ করা একই কমিটিতে তাকে কার্যনিব্যাহী সদস্য করা হয়।

এরপর থেকে তারা দলীয় শৃঙ্খলা মেনে তারা আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে যাচ্ছেন। কিন্তু নিজেদের ফায়দা হাসিলের জন্যে হঠাৎ করে কোন নোটিশ ছাড়াই উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সম্পাদক তাদের দু’জনকে সাময়িক বহিস্কার করেন যা বেআইনী ও গঠনতন্ত্র পরিপন্তী।

তাদের দাবি, শত্রুপক্ষ দ্বারা প্রভাবিত হয়ে বিশ্বনাথ উপজেলা আওযামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক তাদের দু’জন রাজনৈতিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য এই বহিষ্কারাদেশ দিয়েছেন।

অবিলম্বে এই মনগড়া বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করা না করলে সভাপতি ও সম্পাদকের বিরুদ্ধে তারা দলের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং দলের কেন্দ্রীয় পরিষদের নিকট লিখিতভাবে অভিযোগ দায়ের করবেন।

এ-প্রসঙ্গে উপজলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহ আসাদুজ্জামান আসাদ মুঠোফোন রিসিভ করেননি।

তবে, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহমদ বলেছেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দলীয় নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে কুরুচিপূর্ন বক্তব্য প্রদান, নানাভাবে সংগঠনের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করা, দলীয় শান্তি শৃঙ্খলা ও গঠনতন্ত্র বিরোধী কর্মকান্ডে জড়িত থাাকয় উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও দূর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মতিন এবং সদস্য ফজর আলীকে সাময়িকভাবে বস্কিার করা হয়েছে। এছাড়া দলের গঠনতন্ত্রেও আলোকেই তাদেরকে বহিস্কার করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।


ডেসিস/জেকে/০৩ জুলাই ২০২৪ইং

শেয়ার করুন

পাঠকের মতামত

এ বিভাগের আরো সংবাদ

Sidebar Google Ad Code