Daily Sylhet Sangbad - Latest Bangla News বিশ্বনাথে সড়ক দুর্ঘটনায় পত্রিকা বিক্রেতা আহত
বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৫:১৫ পূর্বাহ্ন

সিলেট



নিজস্ব প্রতিবেদন

প্রকাশ: ২০২২-০৬-২৬ ০৮:১৪:০৫


বিশ্বনাথে সড়ক দুর্ঘটনায় পত্রিকা বিক্রেতা আহত

সিলেটের বিশ্বনাথে সড়ক দুর্ঘটনায় আমির আলী (৫০) নামের এক পত্রিকা বিক্রেতা গুরুতর আহত হয়েছেন। তার ডান হাত ভেঙে যাওয়ার পাশাপাশি মাথা ও পায়ে গুরুতর জখম রয়েছে। সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে শনিবার (২৫ জুন) বিকেলে তিনি বাড়ি ফিরেছেন।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (২৩জুন) বিকেলে বৈরাগী বাজারের মুজরাই পাড়া এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে। আহত আমির বিশ্বনাথের পার্শ্ববর্তি ওসমানীনগরের শোয়ারগাঁও গ্রামের মৃত আরজান আলীর ছেলে।

দীর্ঘ প্রায় ২৫ বছর ধরে তিনি বিশ্বনাথ, রামপাশা ও সিংগেরকাছ বাজার এলাকায় পত্রিকা বিক্রি করে আসছেন। আর গত ১৫ বছর ধরে বিশ্বনাথের মেসার্স ফিরোজ এন্টারপ্রাইজের মালিক কাজী ফরিদ আহমদের মাধ্যমে বিশ্বনাথের রামপাশা-বৈরাগী ও সিংগেরকাছ এলাকায় পত্রিকা বিক্রি করে জীবনযাপন করছিলেন।

আমির আলীর ভাতিজা মঈন উদ্দিন জানান, ‘বিশ্বনাথ-রামপাশা-বৈরাগী-সিংগেরকাছ’ সড়ক দিয়ে গত বৃহস্পতিবার দুপুরে পত্রিকা বিক্রি করতে সিংগেরকাছ বাজারে যান আমির আলী।

ওইদিন সিংগেরকাছ বাজার থেকে বিশ্বনাথ শহরে পৌঁছার সময় তাকে বহনকৃত সিএনজি চালিত অটো রিকশাটি বৈরাগী মুজরাইপাড়া এলাকায় নিয়স্ত্রণ হারিয়ে (ব্রেক ফেল করে) অন্য আরেকটি টমটমের উপর উঠে গিয়ে উল্টে যায়। এতে তার ডান হাত ভেঙে যায় এবং তিনি গুরুতর আহত হন।

পরে স্থানীয়রাসহ অটোরিকশা মালিকের সহযোগীতায় তাকে প্রথমে বিশ্বনাথ উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স ও পরে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়।

ফিরোজ এন্টারপ্রাইজের মালিক কাজী ফরিদ আহমদ বলেন, গত ১৫ বছর ধরে তার মাধ্যমে আমির আলী বিশ্বনাথের রামপাশা-বৈরাগী ও সিংগেরকাছ লাইনে পত্রিকা বিক্রি কওর কোন উপায়ে জীবনযাপন করছিলেন। কিন্তু গত বৃহস্পতিবার সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে এখন ঘরবন্ধি হয়ে পড়েছেন।

পারিবারিক অবস্থা ভালো নয় জানিয়ে আহত আমির আলী বলেন, তার পত্রিকা বিক্রি আর ভাতিজা মঈন উদ্দিনের দিনমজুরীর টাকায় ৫ সদস্যের সংসার চলতো। বর্তমানে হাত ভেঙে নিজেও ঘরবন্ধি। চিকিৎসার জন্য যে টাকার প্রয়োজন তাও নেই। তাই মানবিক কারণে প্রবাসীসহ সকল বিত্ত্ববানদেও প্রতি সহযোগীতা কামনা করেছেন।

এজন্য তিনি বিশ্বনাথের পত্রিকা এজেন্ট ফিরোজ এন্টারপ্রাইজের মালিক কাজী ফরিদ আহমদের ০১৭১২-৬৪৮০৫৬ এই বিকাশ নাম্বারে সহযোগীতা পাঠাতে বিনীত অনুরোধ জানিয়েছেন।

বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) গাজী আতাউর রহমান বলেন, এ ঘটনার খবর তিনি জানেন না। তবে, আইনীসহ যেকোন সহযোগীতার প্রয়োজন হলে তিনি সে সহযোগীতা করবেন বলে জানিয়েছেন।


ডেসিস/জকে/ ২৬ জুন ২০২২ইং

শেয়ার করুন

পাঠকের মতামত

এ বিভাগের আরো সংবাদ

Google Ad Code Here